জানেন কী! শিবের প্রসাদে কেন ভাঙ দেওয়া হয় ?

কুম্ভ মেলা আয়োজিত হচ্ছে উত্তরপ্রদেশে, তিনটি নোদির সংগম স্থলে (গঙ্গা, যমুনা ও সরস্বতী) ৷ এখানে মেলার বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে সাধু সন্ততীরা এসে জড়ো হন ৷

জানেন কী! শিবের প্রসাদে কেন ভাঙ দেওয়া হয়

সাধু সন্ততীরা সাধারনত গাঁজা এবং ভাঙ নেশায় চুর হয়ে থাকেন ৷ তবে, দেশের আইনানুযায়ী গাঁজা এবং ভাঙ এই দু’টোর নেশা করাই একেবারেই নৈব নৈব চ ৷ কিন্তু এই কুম্ভমেলায় গাঁজা  ও ভাঙের নেশাতেই সাধু সন্ন্যাসীরা মত্ত থাকেন ৷

কিন্তু কারণ জানেন ? এর কারণ হল ভগবান শিব ৷ ভগবান শিবের সঙ্গে ভাঙের সম্পর্ক রয়েছে ৷ পুরাণ মতে, ভগবান শিবের প্রিয় প্রসাদ ছিল এই ভাঙ ৷ তাই ভাঙ্গের নেশা শিব ভক্তিরই একটি অংশ ৷

জানেন কী! শিবের প্রসাদে কেন ভাঙ দেওয়া হয়

শিবের প্রিয় প্রসাদ হল ভাঙ ৷ তাই শিবরাত্রির দিনও পুজোর প্রসাদ হিসেবে দেওয়া হয় ভাঙ ৷ তবে, এর সঙ্গেও জড়িয়ে রয়েছে একটি পুরাতন কাহিনী ৷ সংসারে একবার ঝামেলার জন্য বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে যান ভগবান শিব ৷ কিছুটা দূর যাওয়ার পর তাঁর জল তেষ্টা পায় ৷ কাছে – দূরে কোনো কিছু না পাওয়ার কারনে রাস্তায় একটা গাছের পাতা ছিঁড়ে খেয়ে নেন জল পিপাসা মেটানোর জন্য ৷ কিন্তু সেই গাছের পাতার রস খাওয়ার পর ভগবান সুব তুষ্ট ও তপ্ত বোধ করেন ৷

আরও পড়ুনঃ শুভশ্রীর এ রকম ছবি কেন শেয়ার করলেন রাজ চক্রবর্তী ?

জানেন কী! শিবের প্রসাদে কেন ভাঙ দেওয়া হয়

পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায় যে, যেই গাছের পাতা ছিঁড়ে জল পিপাসা মিটিয়ে ছিলেন সেটি ছিল ভাঙ গাছের পাতা । এখান থেকেই ভাঙকে শিবের প্রসাদ হিসেবে মানা হয়ে থাকে ৷ তার সাথেও বট, নারকেল, বেল, কলা তুলসী পাতাকেও পবিত্র মানা হয়ে থাকে ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker